প্রকাশ: ০৩:১৯:০০ পিএম, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮
বাজার চাঙ্গায় নতুন ইস্যু

দেশের উভয় শেয়ারবাজারে ডিভিডেন্ডের মৌসুমেও সূচক ও লেনদেনে মন্দা। এ মন্দা পরিস্থিতে কমছে বেশীরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। দরপতনের কবল থেকে কিছুতেই যেন মুক্তি মিলছে না। 

এখন অবস্থাটা এমন হয়েছে যে, এক-পা এগোয় তো তিন পা পিছিয়ে যায় বাজার। অর্থাৎ সূচক একদিন বাড়ে তো কয়েক দিন কমে। যতটুকু সূচক বাড়ছে তার চেয়ে বেশি কমে যায়। এমন পরিস্থিতিতে বাজারে নতুন ইস্যুর দরকার বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা।

আজ সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচকের পতনে লেনদেন শেষ হয়েছে। এইদিন লেনদেনের শুরু থেকেই সেল প্রেসারে টানা নামতে থাকে সূচক। বৃহস্পতিবার সূচকের পাশাপাশি কমেছে বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। তবে টাকার অংকে লেনদেন আগের দিনের তুলনায় কিছুটা বেড়েছে। আজ দিন শেষে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৫২৫ কোটি ৩৩ লাখ ৮৭ হাজার টাকা।

এ প্রসঙ্গে একাধিক মার্চেন্ট ব্যাংক ও ব্রোকারেজ হাউজের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, লেনদেনের শুরুতে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে শেয়ার কেনার ঝোক থাকলেও মাঝামাঝি সময়ে মুনাফাভোগী বিনিয়োগকারীদের মধ্যে মুনাফা তুলে নেয়ার প্রবণতা বেড়ে যায়। এর কারণে বাজারে সেল প্রেসার বেড়ে যায়। পরিণতিতে সূচকের পতন ঘটে।

তারা আরও বলেন, বেশ কয়েক দিন ধরেই বাজারকে ঘীরে বিনিয়োগকারীদের আস্থা সংকট দেখা দিয়েছে। বাজারে তাদের অনাস্থার কারণেই টানা সূচকের পতন ঘটছে। এই পতন থেকে বেরিয়ে আসতে হলে বাজারে নতুন ইস্যুর দরকার বলে মনে করেন তারা।

দিন শেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ৪৭ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৫৩৪২ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ১০ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১২৩০ পয়েন্টে এবং ডিএসই ৩০ সূচক ১৩ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১৮৮৪ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ৩৩৭টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৭৭টির, কমেছে ২২৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৬টির। আর দিনশেষে লেনদেন হয়েছে ৫২৫ কোটি ৩৩ লাখ ৮৭ হাজার টাকা।

এর আগের কার্যদিবস দিন শেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স ৩ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ৫৩৯০ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ০.৮৩ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ১২৪০ পয়েন্টে এবং ডিএসই ৩০ সূচক ৬ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ১৮৯৭ পয়েন্টে। আর ওইদিন লেনদেন হয়েছিল ৫১৪ কোটি ৫২ হাজার টাকা। সে হিসেবে আজ ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ১১ কোটি ৩৩ লাখ ৩৫ হাজার টাকা।

এদিকে, দিনশেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সাধারণ মূল্য সূচক সিএসইএক্স ৭০ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৯৯৫৮ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ২৩২টি কোম্পানির ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৬০টির, কমেছে ১৫১টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২১টির। আর দিনশেষে লেনদেন হয়েছে ২০ কোটি ৭১ লাখ ২৯ হাজার টাকা।