প্রকাশ: ০৭:০৩:০০ পিএম, ১৬ অক্টোবর ২০১৮
কানের ব্যথা ও  ইনফেকশনের ঘরোয়া চিকিৎসা

যখন আপনার শিশু কানের ইনফেকশনে ভুগে, তখন কান ব্যথা দ্রুত নিরাময় করার জন্য এই ইনফেকশন সম্পর্কে বোধগম্য হওয়া গুরুত্বপূর্ণ। সাধারণত চিকিৎসকরা অ্যান্টিবায়োটিক তেমন একটা দেন না এবং অধিকাংশ পিতামাতা এসব ওষুধের প্রতি মনোযোগী।

কিন্তু কখনো কখনো কানের ব্যথার জন্য ঘরোয়া চিকিৎসাই সর্বোত্তম। কানের ইনফেকশনের এসব ঘরোয়া চিকিৎসা ঘরেই কানের ব্যথা প্রশমিত করতে পারে। কিন্তু আপনার শিশুকে ডাক্তার দেখানোই সর্বোত্তম- তিনিই ভালো বলতে পারবেন যে মেডিক্যাল ট্রিটমেন্ট অথবা চেকআপ প্রয়োজন হবে কিনা।

* যন্ত্রণাদায়ক কান বালিশে লাগিয়ে ঘুমানো
এটি হচ্ছে কানব্যথার সবচেয়ে সহজ ঘরোয়া চিকিৎসা। কানের প্রদাহ ও তরলের কারণে কানব্যথা হয়ে থাকে। বালিশের সঙ্গে যন্ত্রণাদায়ক কান লাগিয়ে ঘুমালে মধ্যাকর্ষণ শক্তি কানের ব্যথা উপশমে সাহায্য করতে পারে, কারণ যন্ত্রণাদায়ক কান থেকে তরল বের হয়ে যায়। অবশ্য বিশ্রামও গুরুত্বপূর্ণ। তাই দিনে এই চিকিৎসা কার্যকর করতে আপনার শিশুকে কিছু সময় রিলাক্সে থাকতে বলুন।

* নাক পরিষ্কার করুন
প্রায়ক্ষেত্রে নাক বন্ধ হয়ে গেলে কানব্যথা হয়ে থাকে। স্যালাইন স্প্রে দিয়ে নাক পরিষ্কারকরণ কানের তরল প্রাকৃতিকভাবে বের হতে সাহায্য করে। এই চিকিৎসা অল্প বয়সী শিশুদের জন্য উপযুক্ত নয়। কিন্তু এটি ঘর থেকে বের হওয়া ছাড়াই কানের ইনফেকশন উপশম করবে।

* কান ঝাকানো
কানব্যথা প্রায়ক্ষেত্রে অন্তঃকর্ণের সঙ্গে গলার সংযোগকারী ইউস্ট্যাশিয়ান টিউব থেকে উদ্ভূত হয়। এই টিউব কানের পর্দার চারপাশে বায়ুচাপের ভারসাম্য বজায় রাখে। এটি ব্লক হয়ে গেলেও কানব্যথা হতে পারে। আপনার শিশুর কানের লতি চেপে ধরে হালকাভাবে ভেতর থেকে নিচে টানুন। এভাবে কয়েকবার করুন, ব্লক ভেঙ্গে যাবে এবং কানব্যথা উপশম হবে।

* তাপ প্রয়োগ করা
কানের ইনফেকশনে গরম ভাপ একটি কার্যকর ঘরোয়া চিকিৎসা। একটি পরিষ্কার কাপড় হালকা গরম পানিতে পানিতে ভেজান এবং এটি সংক্রমিত কানের ওপর রাখুন।

* পেঁয়াজের রস ব্যবহার করুন
পেঁয়াজে অ্যান্টিসেপ্টিক এবং অ্যান্টিব্যাক্টেরিয়াল জাতীয় উপাদান রয়েছে এবং কিছু লোকের দাবি হচ্ছে, এটি কানের ইনফেকশনের জন্য চমৎকার ঘরোয়া চিকিৎসা। একটি তাজা পেঁয়াজ কাটুন এবং এবং একটি পরিষ্কার কাপড়ে তা মুড়ে নিন, তারপর এটি সংক্রমিত কানের ওপর পাঁচ থেকে ১০ মিনিট পর্যন্ত ধরে রাখুন। বিকল্পভাবে, আপনি কানের ভেতর দুই থেকে তিন ফোঁটা পেঁয়াজের রস দিতে পারেন।

* ওটিসি ব্যথার ওষুধ খাওয়ান
যদিও সময় অতিবাহিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গ কানের ইনফেকশন ভালো হয়ে যায়, কিন্তু এটি যতক্ষণ থাকে যন্ত্রণাদায়ক হতে পারে। আপনি আপনার শিশুকে টাইলিনলের মতো ব্যথানাশক দিয়ে কানের ব্যথা উপশম করতে পারেন। অ্যাডভিল অথবা মটরিনের মতো প্রদাহ-বিরোধী ওষুধ বিশেষভাবে কার্যকর হতে পারে, কারণ তারা ব্যথা সৃষ্টিকারী প্রদাহ হ্রাস করতে পারে।

* তেলের ফোঁটা ব্যবহার করুন
কানের ইনফেকশনের জন্য একটি পুরোনো ঘরোয়া চিকিৎসা হচ্ছে, কানের ভেতর কয়েক ফোঁটা বডি-টেম্পারেচার অয়েল দেওয়া। আমেরিকান অ্যাকাডেমি অব পেডিয়াট্রিকসের মতে, এটি ব্যথা দেবে না এবং পরিমিত পরিমাণে কার্যকর। ঘরে কানের ব্যথা প্রশমিত করতে কানের ভেতর দুই থেকে তিন ফোঁটা অলিভ অয়েল দিন।

* রসুন ব্যবহার করুন
রসুনে অ্যান্টিবায়োটিক গুণ রয়েছে, তাই এটি কানের ইনফেকশন জনিত কান ব্যথা নিরাময়ের জন্য ঘরোয়া সেরা চিকিৎসা। তেলের মধ্যে রসুন গরম করুন এবং এই মিশ্রণ ঠান্ডা করুন। সতর্কভাবে রসুন অপসারণ করুন এবং এই তেলের দুই থেকে তিন ফোঁটা সংক্রমিত কানের ভেতর দিন।

* আপেল সিডার ভিনেগার ব্যবহার করুন
আপেল সিডার ভিনেগারের সঙ্গে অনেক স্বাস্থ্য উপকারিতার সংযোগ রয়েছে, তাই এটি যে কানের ইনফেকশনের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা যায় তা নিয়ে বিস্মিত হওয়ার কিছু নেই। কানের সমস্যার প্রথম লক্ষণ প্রকাশ পেলে কয়েক ফোঁটা আপেল সিডার ভিনেগার কানের ভেতর দিন এবং এক মিনিট বসে থাকুন। তারপর কানের ভেতর থেকে আপেল সিডার ভিনেগার বের হয়ে যেতে দিন। আপনার কানব্যথা চলে যাবে।

তথ্যসূত্র : রিডার্স ডাইজেস্ট