প্রকাশ: ০৯:৩৩:০০ পিএম, ০৯ জুন ২০১৮
 মুনাফায় শেয়ারবাজারের সেরা ১৯ কোম্পানি

বাংলার কন্ঠ প্রতিবেদক: ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, বীমা, বহুজাতিক কোম্পানি ও মিচ্যুায়াল ফান্ড বাদে শেয়ারবাজারে তালিকাভূক্ত জুন ক্লোজিং কোম্পানির সংখ্

সূত্রে জানা যায়, মুনাফায় থাকা ১৭২টি কোম্পানির মধ্যে চলতি অর্থবছরের প্রথম ৯ মাসে (জুলাই ২০১৭ হতে মার্চ ২০১৮ পর্যন্ত) শেয়ারপ্রতি ৬ টাকার বেশি মুনাফা করেছে- এমন কোম্পানি মাত্র ১৯টি। কোম্পানিগুলোর মধ্যে ফার্মা ও রসায়ন খাতে রেনেটা, ফার্মা এইড, স্কয়ার ফার্মা, কোহিনূর ক্যামিকেল, এসিআই ও ইবনে সিনা; বিদ্যু ও জ্বালানি খাতে ইস্টার্ন লুব্রিকন্টে, পদ্মা ওয়েল, মেঘনা পেট্রোলিয়াম, যমুনা ওয়েল, ইউনাইটেড পাওয়ার ও ডরিন পাওয়ার; বস্ত্র খাতে স্টাইলিক্রাপ্ট ও রহিম টেক্সটাইল; চামড়া খাতে এ্যাপেক্স ফুট্ওয়ার; খাদ্য খাতে ন্যাশনাল টি ও অলিম্পিক ইন্ডাষ্ট্রিজ; প্রকৌশল খাতে বিএসআরএম লিমিটেড এবং বিবিধ খাতে এরামিট লিমিটেড।

মুনাফায় শীর্ষে থাকা কোম্পানিগুলোর মধ্যে স্বল্প মূলধনী কোম্পানি রয়েছে ৪টি। কোম্পানিগুলো হলো- ইস্টার্ন লুব্রিকেন্ট, ফার্মা এইড, ন্যাশনাল টি ও এরামিট লিমি্টেড। এর মধ্যে ইস্টার্ন লুব্রিকেন্টের মূলধন ৯৯ লাখ ৪০ হাজার টাকা, ফার্মা এইডের ৩ কোটি ২০ লাখ টাকা, এরামিট লিমিটেডের ৬ কোটি টাকা এবং ন্যাশনাল টির ৬ কোটি ৬০ লাখ টাকা। স্বল্প মূলধনী কোম্পানিগুলোর মধ্যে ফার্মা এইড ও এরামিট লিমিটেড মার্জিনেবল শেয়ার হলেও বাকি দুটি কোম্পানির শেয়ার নন-মার্জিনেবল। তবে মুনাফায় শীর্ষে থাকা অবশিষ্ট ১৫ কোম্পানির শেয়ার মার্জিনেবল। অর্থাৎ কোম্পানিগুলোর মূল্য আয় অনুপাত (পিই রেশিও) ৪০-এর নিচে রয়েছে।

জুন ক্লোজিংয়ের ২০৩ কোম্পানির মধ্যে চলতি অর্থবছরের ৯ মাসে শীর্ষ মুনাফার ১৯ কোম্পানি হলো: রেনেটার ইপিএস ৩১.১৪ টাকা, ইস্টার্ন লুব্রিকেন্টের ২৮.৪৩ টাকা, স্টাইলক্রাপ্টের ২৪.৫৫ টাকা, পদ্মা ওয়েলের ১৮.৫১ টাকা, মেঘনা পেট্রোলিয়ামের ১৮.১২ টাকা, যমুনা ওয়েলের ১৭.১৭ টাকা, ফার্মা এইডের ১২.৩৪ টাকা, স্কয়ার ফার্মার ১১.৯৯ টাকা, এ্যাপেক্স ফুটওয়ারের ১০.৫৮ টাকা, ন্যাশনাল টির ৯.১৪ টাকা, এসিআইর ৮.৯৫ টাকা, ইউনাইটেড পাওয়ারের ৮.৪১ টাকা, কোহিনূর ক্যামিকেলের ৭.৬৬ টাকা, ইবনে সিনহার ৭.৬৫ টাকা, এরামিট লিমিটেডের ৭.৫৪ টাকা, অলিম্পিক ইন্ডাষ্ট্রির ৬.৭১ টাকা, রহিম টেক্সটাইলের ৬.৬৫ টাকা, বিএসআরএম লিমিটেডের ৬.৩১ টাকা এবং ডরিন পাওয়ারের ৬.০৯ টাকা।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, কোম্পানিগুলো মুনাফা যখন প্রকাশিত হয়, তখন শেয়ারবাজার পতন প্রবণতায় থাকে। ফলে স্বল্প মূলধনী ইস্টার্ন লুব্রিকেন্ট ও স্টাইলক্রাপ্টের শেয়ার দরে মুনাফার প্রভাব দেখা গেলেও অবশিষ্ট ১৭ কোম্পানির শেয়ার দরে মুনাফার প্রভাব তেমন একটা দেখা যায়নি। যদিও কোম্পানিগুলোর মধ্যে বেশিরভাগ কোম্পানির মুনাফা এ যাবতকালের মধ্যে সর্বোচ্চ রেকর্ড মুনাফা।

জুন ক্লোজিং ইপিএসের শীর্ষ ১৯ কোম্পানির পরিশোধিত মূলধন, গত অর্থবছরের ৯ মাসে শেয়ার প্রতি আয় এবং চলতি অর্থবছরের ৯ মাসে শেয়ার প্রতি আয় নিচে দেয়া হলো- 

ক্রমিক

কোম্পানি

 মূলধন      (টাকায়)

৯ মাসে ইপিএস    (টাকায়)        

 

২০১৭

২০১৮

রেনেটা

৭০ কোটি ৪ লাখ

২৬.২৬টাকা

৩১.১৪

ইস্টার্ন লুব্রিকেন্ট

৯৯ লাখ ৪০ হাজার

১২.৪৩

২৮.৪৩

স্টাইলক্রাপ্ট

৯৯ লাখ

২১.৬৩

২৪.৫৫

পদ্মাওয়েল

৯৮ কোটি ২৪ লাখ

১৪.২৯

১৮.৫১

মেঘনা পেট্রোলিয়াম

১০৮ কোটি ২২ লাখ

১৪.৩১

১৮.১২

যমুনা ওয়েল

১১০ কোটি ৪৩ লাখ

১৫.৬৩

১৭.১৭

ফার্মা এইড

৩ কোটি ২০ লাখ

৭.১৭

১২.৩৪

স্কয়ার ফার্মা

৭৩৭ কোটি ৪০ লাখ

১০.৫৯

১১.৯৯

এ্যাপেক্স ফুটওয়ার

১১ কোটি ২৫ লাখ

৮.৪৮

১০.৫৮

১০

ন্যাশনাল টি

৬ কোটি ৬০ লাখ

৪.৪২

৯.১৪

১১

এসিআই

৪৮ কোটি ২১ লাখ

১৫.১১

৮.৯৫

১২

ইউনাইটেড পাওয়ার

৩৯৯ কোটি ২৪ লাখ

৮.০৫

৮.৪১

১৩

কোহিনূর ক্যামিকেল

১৪ কোটি ২ লাখ

৬.৪৯

৭.৬৬

১৪

ইবনে সিনা

২৮ কোটি ৪০ লাখ

৬.৪৯

৭.৬৫

১৫

এরামিট লিমিটেড

৬ কোটি

৭.০১

৭.৫৪

১৬

অলিম্পিক ইন্ডাষ্ট্রিজ

১৯৯ কোটি ৯৪ লাখ

৬.৪৪

৬.৭১

১৭

রহিম টেক্সটাইল

৭ কোটি ৮২ লাখ

৪.৬৭

৬.৬৫

১৮

বিএসআরএম

২১৪ কোটি ৬১ লাখ

৩.৩৮

৬.৩১

১৯

ডরিন পাওয়ার

১০ কোটি ৫৬ লাখ

৫.১৭

৬.০৯