প্রকাশ: ১০:৪৯:০০ এএম, ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮
যে গ্রামে বিড়াল নিষিদ্ধ!

গ্রামের কোন ঘরে বিড়াল থাকতে পারবে না। বিড়ালের আক্রমণ থেকে স্থানীয় পশুপাখিদের বাঁচাতেই এমন সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে নিউজিল্যান্ডের দক্ষিণ উপকূলে ওমায়ু নামের ছোট একটা গ্রাম। 

বিবিসি জানাচ্ছে, এখন যাদের ঘরে পোষা বিড়াল আছে সেসব মারা যাওয়ার পর তাদের আর কোন বিড়াল পালতে দেয়া হবে না। এ ছাড়া বিড়ালের মালিকদের নামধামসহ নথিভুক্ত করতে হবে স্থানীয় কর্তৃপক্ষের কাছে।

পুরো গ্রাম বিড়াল শূন্য হয়ে যাবে এমন নির্মম সিদ্ধান্ত অনেকে মানতে চাইবে না। কিন্তু এ ছাড়া গ্রামবাসীর আর কোনো উপায় ছিল না। গ্রামের শত শত পাখি ও প্রাণীর মৃত্যুর পিছনে এসব গৃহপালিত বিড়ালকেই দায়ী করছেন তারা।

কর্তৃপক্ষ জানাচ্ছে, আমরা বিড়ালের বিরুদ্ধে নয়, এদের আমরা ঘৃণাও করি না। কিন্তু আমাদের পরিবেশ ও প্রাণীজগৎ রক্ষার্থে এ ছাড়া অন্য কোন সমাধান দেখছি না।  

তবে প্রাণী ও পশুবিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিড়ালরা দেখতে সুন্দর হয়। অন্য পশুপাখির নিরাপত্তার জন্য কুকুরের মত এদেরকে ঘরের ভেতরেই রাখা যায়। যাতে তারা বাইরে আসতে না পারে। এটাই ভাল সমাধান হতে পারে

তবে গ্রামের কর্তৃপক্ষ বলছে, তাদের এই সিদ্ধান্ত সম্পূর্ণ যৌক্তিক। কারণ বিড়ালরা পাখি, পোকামাকড় আর সরীসৃপদের খেয়ে ফেলছে এমন দৃশ্য সিসি ক্যামেরা ধরা পড়েছে।

তারা জানাচ্ছেন, এখন যেসব ঘরে বিড়াল আছে তারা থাকবে। তবে এরা মারা যাবার পর আর কোন বিড়াল আনা যাবে না। যারা এ সিদ্ধান্ত অমান্য করবে তাদের বিড়াল কেড়ে নেয়া হবে।