ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩


‘সড়ক ও পরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরানোই বড় চ্যালেঞ্জ’

মঙ্গলবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ | ১২:২৫:৩৮ am

সড়ক ও পরিবহন সেক্টরে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা বড় চ্যালেঞ্জ বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।
 
সোমবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী এ কথা বলেন।
 
ওবায়দুল কাদের বলেন, সড়ক ও পরিবহন সেক্টরে আমরা যত কিছুই করি না, যদি সড়কে বিশৃঙ্খলা ঠেকানো না যায়, জনগণ এর সুফল পাবে না। তাই অন্যান্য উদ্যোগের পাশাপাশি সড়ক ও পরিবহনে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে হবে।
 
সাধারণ মানুষ আইন মানলেও ‘অসাধারণ ও রাজনৈতিক’ ব্যক্তিদের আইন মানানো যায় না বলে মন্তব্য করেন মন্ত্রী।
 
তিনি বলেন, ‘সাধারণ মানুষকে আইন মানানো যায়। তারা কথা শোনে তবে রাজনৈতিক, অসাধারণ ও ভিআইপিদের আইন মানানো যায় না। বাধা দিলে তারা (রাজনৈতিক ব্যক্তি) পুলিশের ওপর আক্রমণ করে।’
 
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘গত বছরের তুলনায় এ বছর সড়ক দুর্ঘটনা অর্ধেকে নেমে এসেছিল। তবে হঠাৎ করে ঈদুল আজহায় সড়কে পাখির মতো মানুষ মরেছে। সড়ক ও পরিবহন সেক্টরের মন্ত্রী হিসেবে এর দায় আমিও এড়াতে পারি না।’
 
মন্ত্রী বলেন, ‘বেপরোয়া গাড়ি চালানো এই দুর্ঘটনার প্রধান কারণ। এটা কমাতে পারছি না। বর্তমানে রাস্তা ভালো হওয়ায় গাড়ির গতি বেড়েছে। ফলে দুর্ঘটনাও বেড়েছে।’
 
ঢাকা সিটিতে বর্তমানে ১৫ লাখ রিকশা থাকলেও মাত্র ৫০ হাজার রিকশার লাইসেন্স আছে জানিয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, যানজট কমাতে এগুলোকে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। আমাদের রিকশা ও ইজিবাইকের বিকল্প খুঁজে বের করতে হবে।
 
সংবাদ সম্মেলনে মধ্যবর্তী নির্বাচন নিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘মধ্যবর্তী নির্বাচন নিয়ে বর্তমানে দেশি ও বিদেশি কোনো চাপ বা তাগিদ নেই। এ ছাড়া মধ্যবর্তী নির্বাচনের কোনো দাবি আমরা কোথাও থেকে পাইনি। বিরোধীরা আরেকটি নির্বাচন দেওয়ার মতো কোনো পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে পারেনি। সেখানে আমরা কেন মধ্যবর্তী নির্বাচনের নাটক সাজাব?’
 
সংবাদ সম্মেলনে ছিলেন ডিআরইউর সভাপতি জামাল উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ প্রমুখ।

বাংলারকণ্ঠ ডটকম/ঢাকা/২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬/এস আই/জে এইচ