ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩


ছেলেদের বিকাশ হয় মেয়েদের তুলনায় ১১ বছর পর

শুক্রবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ | ১১:০০:৪৯ pm

বয়সের সঙ্গে সঙ্গে বুদ্ধিদীপ্তির বিকাশ হবে, আমরা সাধারণত এটাই জানি কিন্তু আদতে তা নয়। প্রতিবন্ধী শিশু ব্যতীত এমন অনেকে আছেন যাদের প্রাপ্ত বয়স হওয়া সত্ত্বেও তারা বাচ্চাসুলভ আচরণ করেন। তবে তারা কিন্তু অস্বাভাবিক নয়। আর এটি বেশি ঘটে ছেলেদের ক্ষেত্রে। কারণ ছেলেরা তাদের এই মানসিক বিকাশ পান মেয়েদের তুলনায় অনেক দেরিতে।
 
প্রায় প্রত্যেক নারীরই তাদের ছেলের এবং স্বামীর সম্পর্কে একটি অভিযোগ থেকেই যায়, আর তা হলো তাদের ছেলে এবং স্বামী অপ্রাপ্তবয়স্কদের মতো আচরণ সম্পর্কে। ভিডিও গেম খেলা, প্রাঙ্ক তৈরি করা, কোনো কারণ ছাড়া কাউকে বিরক্ত করা, এ ছাড়া আরো অনেক বাচ্চাসুলভ আচরণ করে। তবে এই ধরনের আচরণগত সমস্যার কারণে কাউকে দোষারোপ করার আগে আমাদের একটি কথা জেনে রাখা দরকার।
 
যুক্তরাজ্যের নিকেলেডিয়ন এক গবেষণা থেকে জানিয়েছে যে, একজন পুরুষের পরিপূর্ণ বিকাশ ঘটে ৪৩ বছর বয়সে কিন্তু একজন নারীর বিকাশ ঘটে তারও ১১ বছর পূর্বে অর্থাৎ ৩২ বছর বয়সে। নিকেলেডিয়ন তার ‘অয়েন্ডেল অ্যান্ড ভিনি’ টিভি অনুষ্ঠানে এই তথ্য প্রকাশ করেছেন।
 
এই গবেষণার মাধ্যমে অনেক পুরুষ এবং নারী স্বীকার করেছেন যে, পুরুষের অপ্রাপ্তবয়স্ক আচরণ ৩০ এর পরে এবং ৪০ এর আগে পর্যন্ত বিদ্যমান থাকে। তারা এটা স্বীকার করেছেন যে, নারীরা মূলত পুরুষের তুলনায় আগে মানসিক বিকাশ ধারণ করে। তবে এই গবেষণায় আরো বলা হয়েছে যে, অনেক নারী বিশ্বাস করেন যে পুরুষ জীবনে আসলে কখনো সত্যিকার বেড়ে ওঠে না। ভিডিও গেম খেলা, গভীর রাতে ফাস্ট ফুড খাওয়া, পরিচিতজনের সামনে বায়ু ত্যাগ করা- এ ধরনের শিশুসুলভ আচরণ তাদের মধ্যে থাকেই।
 
এই গবেষণা থেকে পাওয়া পুরুষের শীর্ষ ৩০টি অপরিপক্ব আচরণ নিচে উল্লেখ করা হলো।
 
১) খুব হাসিখুশিভাবে বায়ু ত্যাগ করা এবং ঢেকুর তোলা।
২) রাত ২টার সময় উঠে ফাস্ট ফুড খাওয়া।
৩) অনবরত ভিডিও গেম খেলা।
৪) খুব দ্রুত গাড়ি চালান, যা দেখে মনে সে অন্য কোনো গাড়ির সঙ্গে প্রতিযোগিতা করছে। দিনের বেলাতেও গাড়ির লাইট জ্বালিয়ে রাখা।
৫) হাসতে হাসতে গালি দেওয়া।
৬) উচ্চ আওয়াজে গান শুনতে শুনতে গাড়ি চালানো।
৭) কৌতুক বলার থেকে করে বেশি।
8) বাচ্চাদের সঙ্গে খেলার সময় তাদেরকে মারের চেষ্টা।
৯) তর্কের ক্ষেত্রে চুপ করে থাকা।
১০) খুব সাধারণ কোনো রান্নাও করতে না পারা।
১১) একই কৌতুক বারবার করে সবাইকে শোনানো এবং নিজেই সবার থেকে বেশি হাসা।
১২) নিজের সম্পর্কে কথা বলতে অনীহা প্রকাশ করা।
১৩) বই পড়তে পছন্দ না করা, কারণ এতে একটু হলেও মনোযোগ দেওয়া লাগে এবং তাতে তারা বিরক্ত হয়ে পড়ে।
১৪) পাগলাটে ধরনের নাচ করা।
১৫) নিজের কাপড় নিজে না ধুয়ে মাকে দেওয়া ধোয়ার জন্য। 
১৬) সকালের নাশতার জন্য মায়ের ওপর নির্ভর করা।
১৭) নাইট ক্লাবে প্রশিক্ষকের পোশাক পরে যাওয়া।
১৮) একটি স্কেটবোর্ড বা বিএমএক্স এর মালিক হতে পেরে খুব খুশি হয়ে যাওয়া।
১৯) শাকসবজি না খাওয়া।
২০) ঘন ঘন চাকরি বদলে ফেলা।
২১) অল্প কাজে খুব উত্তেজিত হয়ে পড়া।
২২) বাইক বা সাইকেল নিয়ে নানা ধরনের কসরত করা।
২৩) পুরোনো গাড়িকে মোডিফাই করে চালান, তাও আবার খুব ভাবের সঙ্গে।
২৪) সবাইকে বলে বেড়ান যে মেয়েরা তাকে খুব পছন্দ করে।
২৫) পায়জামা পরিধান করা বিশেষ করে কার্টুন ওয়ালা পায়জামা।
২৬) ফন্দিবাজ খোশগল্প করা।
২৭) নিজের বডি ফিটনেস নিয়ে সবার কাছে গল্প করা।
২৮) যত্রতত্র আবর্জনা ফেলা।
২৯) ঢিলাঢালা জিন্স পরিধান করা।
৩০) কার্টুনওয়ালা বেড কভার ব্যবহার করা।

বাংলারকণ্ঠ ডটকম/ঢাকা/২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬/এস আই/জে এইচ