ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩


ব্র্যাঞ্জেলিনার বিচ্ছেদের নেপথ্যে অন্তঃসত্ত্বা এক ফরাসি অভিনেত্রী!

শুক্রবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ | ১১:৪৮:১১ pm

মারিয়ন কটিলার্ড। হলিউডের তারকা দম্পতি ‘ব্র্যাঞ্জেলিনা’র বিচ্ছেদের প্রধান কারণ অস্কারজয়ী এই ফরাসি অভিনেত্রী। তাঁর সঙ্গে ব্র্যাডের সম্পর্ক গড়ে উঠেছে। মারিয়নের জন্যই ব্র্যাড সন্তান ও তাঁর প্রতি মনোযোগ দিচ্ছেন না, এমনই অভিযোগ তুলে বিবাহ-বিচ্ছেদের মামলা দায়ের করেছেন অ্যাঞ্জেলিনা জোলি।

ব্র্যাঞ্জেলিনার বিচ্ছেদের খবর নিয়ে যখন সারা দুনিয়ায় তোলপাড় হচ্ছে তখনই মারিয়ন ঘোষণা করলেন, তিনি অন্তঃসত্ত্বা। এরপরই জল্পনা শুরু হয়েছে মারিয়নের গর্ভস্থ সন্তানের পিতৃ-পরিচয় নিয়ে। অ্যাঞ্জেলিনা ঘনিষ্ঠদের দাবি, স্ত্রীকে ঠকিয়ে ব্র্যাড নিয়মিত মারিয়নের সঙ্গে মেলামেশা করতেন। তাঁরই ঔরসে অন্তঃসত্ত্বা হয়েছেন সহ-অভিনেত্রী মারিয়ন।

যদিও মারিয়ন এই গুজব উড়িয়ে ঘনিষ্ঠদের জানিয়েছেন, ব্র্যাড তাঁর ভাল বন্ধু। ব্র্যাঞ্জেলিনার বিচ্ছেদের খবর শুনে তিনি দুঃখিত। একইসঙ্গে স্পষ্ট করেছেন তাঁর গর্ভস্থ সন্তানের পিতা ব্র্যাড পিট নন। দীর্ঘদিনের প্রেমিক অভিনেতা গুলিয়াম ক্যানেটের সন্তানকে গর্ভে ধারণ করেছেন। ‘অ্যালায়েড’ ছবিতে একসঙ্গে কাজ করেছিলেন ব্র্যাড-মারিয়ন।

সম্প্রতি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ নিয়ে একটি ছবির শুটিং করছেন তাঁরা। সেই সেটেই ব্র্যাডের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা বাড়ে মারিয়নের। স্বামী অন্য নারীর প্রতি আসক্ত, বুঝতে পেরেছিলেন অ্যাঞ্জেলিনার। জানতেন, সেই নারী রোজ দেখা করেন তাঁর স্বামী ব্র্যাড পিটের সঙ্গে৷ কে এই রহস্যময়ী মহিলা? কার জন্য ব্র্যাড তাঁকে ও তাঁদের ছয় সন্তানকে অবহেলা করছেন? এসব ভেবে সন্দেহ তীব্র হয়েছিল অ্যাঞ্জেলিনার। ব্র্যাডের নতুন ছবির সেটে তাই স্পাই লাগিয়েছিলেন জোলি।

৫২ বছরের হলিউড তারকার উপর সারাক্ষণ নজর রাখত সেই গুপ্তচর৷ তার কাছ থেকেই জোলি জানতে পারেন ব্র্যাডের সঙ্গে ছবির নায়িকা মারিয়ন কটিলার্ডের প্রেম চলছে। নিয়মিত ঘনিষ্ঠ হচ্ছেন তাঁরা। বিমানবন্দরে মারিয়ন-ব্র্যাডের একান্ত মুহূর্তের ছবি ক্যামেরাবন্দি করে পাপারাৎজিরা। সেই ছবি প্রকাশ হতেই দাম্পত্যে চিড় ধরে ‘মিস্টার অ্যান্ড মিসেস স্মিথ’-এর৷ বিয়ে ভেঙে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন অ্যাঞ্জেলিনা নিজেই। মারিয়নের সঙ্গে তাঁর সম্পর্কের কথা অস্বীকার করে ব্র্যাড জানিয়েছেন, অ্যাঞ্জেলিনার সঙ্গে বিবাহ-বিচ্ছেদ হোক, চান না তিনি।

এতেই থেমে নেই, জানা গিয়েছে ব্র্যাঞ্জেলিনার বিচ্ছেদের পর মাদাম তুসোর মিউজিয়ামেও ব্র্যাড এবং অ্যাঞ্জেলিনা মোমের মূর্তি দুটিকে পাশাপাশি না রেখে আলাদা করে দেওয়া হয়েছে।

 

বাংলারকণ্ঠ ডটকম/ঢাকা/২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬/এস আই/জে এইচ